অস্বাভাবিক ভাবে বেড়েছে চাল, মসল্লা ও কাঁচা সবজির দাম

260
অস্বাভাবিক ভাবে বেড়েছে চাল, মসল্লা ও কাঁচা সবজির দাম
অস্বাভাবিক ভাবে বেড়েছে চাল, মসল্লা ও কাঁচা সবজির দাম

সাদুল্লাপুর (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি: গাইবান্ধার সাদুল্লাপুরে গত কয়েক দিনে কেজি প্রতি দ্বিগুণ পর্যন্ত বেড়েছে চাল,মসল্লা ও কাঁচা সবজির দাম। এতে করে দুর্ভোগে পড়েছে মধ্যবৃত্ত খেটে খাওয়া নিম্ন আয়ের মানুষগুলো। ক্রয় ক্ষমতার বাহিরে চলে যাওয়ায় ও সংসারের চাহিদা মেটাতে পারছেনা। অতিবৃষ্টি ও বন্যার কারণে নষ্ট হয়ে গেছে আমন ধান সবজী ফসলের ক্ষেত। বাজারে অস্বাভাবিক ভাবে বেড়েছে কাঁচা মরিচ ও পিঁয়াজের দাম। কথা বলছিলাম কৃষক রফিকুল ইসলামের সাথে তিনি বলেন, ভালো দাম পাওয়ার আসায় আগাম লাগানো এক বিঘা (৩৩শতাংশ) জমির ফুলকপি নষ্ট হয়ে গেছে। নষ্ট হয়েগেছে পটল ,করলা, মুলা, লালশাক, ঝিঙ্গা, সীম, মেটে আলু গোল আলুসহ বিভিন্ন রবিশস্য। আর এর ফলে বাজারে বেড়েছে প্রতিটি সবজীর দাম।

সাদুল্লাপুরের সবজি অধিষ্ঠিত এলাকার কৃষকদের সাথে আলাপচারিতায় জানা যায় বাজারে অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধির কথা। সোমবার সকালে ধাপেরহাট বাজার ঘুরে পাওয়া যায় সত্যতা। সোমবার হাট বারে আলু ও চাল,শাক ছাড়া প্রতিটি পণ্যের মূল্য ৫০ টাকার উপরে। চাল প্রকার ভেদে ৪৬- ৫৮ টাকাসিম ১৬০ টাকাকাঁচা মরিচ ২৪০ টাকা শুকনা মরিচ ২৫০টাকা, ধনিয়া পাতা ২৪০ টাকা, টমেটো ১৩০ টাকা, বেগুন ৭০-৮০টাকা,ফুলকপি ১৪০ টাকা পিঁয়াজ, ৯০-১০০ টাকা, আদা ১২০-১৩০ টাকা আলু ৪০-৪৫ টাকা পেঁপে ৫০ টাকা,পটল ৭০ টাকা,বরবটি ৭০ টাকা,তিতা করলা ৬০ টাকা,শশা/ খিরা ৫৫টাকা, ওল ৫৫-৬০ টাকা রসুন ১২০-১৫০ টাকা, পুরা আলু/ মেটে আলু ৫৫-৬০ টাকা, মুলাশাক ৫০-৫৫ টাকা, লালশাক ৩০-৩৫ টাকা,লাউ ৬০-৭০ টাকা প্রতি পিচ,ঝিঙে ৬০-৭০ টাকা। হাটে আসা একাধিক ব্যক্তি অভিযোগ করে বলেন,কিভাবে একটা মধ্যবিত্ত পরিবার নিত্যনৈমিত্তিক জিনিসপত্র কিনে জীবনযাপন করবে?কখন সরকারের টনক নড়বে? কৃষিমন্ত্রী ও বাণিজ্যমন্ত্রীর কাজ টা কি? কেনো এসব নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রীর দাম বৃদ্ধি পেলো? প্রশাসনের মাধ্যমে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রীর দাম তদারকি করলে হয়তো কিছুটা স্বস্তি মিলতে পারে বলে তারা মনে করেন।

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক প্রত্যাশা প্রতিদিন এর দায়ভার নেবে না।