বরগুনা জেলায় ১৪৯ টি পূজামন্ডপে চলছে দুর্গাপূজার আয়োজন

198
বরগুনা জেলায় ১৪৯ টি পূজামন্ডপে চলছে দুর্গাপূজার আয়োজন
বরগুনা জেলায় ১৪৯ টি পূজামন্ডপে চলছে দুর্গাপূজার আয়োজন

মাসুম বিল্লাহ, বরগুনা প্রতিনিধি: বরগুনা জেলায় ১৪৯ টি পূজামন্ডপে চলছে দুর্গাপূজার আয়োজনএবার উৎসব সীমিত করে পালিত হবে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় অনুষ্ঠান শারদীয় দুর্গাপূজা। এ বছর বরগুনা জেলায় ১৪৯টি পূজামন্ডপে চলছে দুর্গাপূজার আয়োজন । যার মধ্যে বরগুনা সদরে ২২ টি, পাথরঘাটায় ৪৯ টি, বামনা ১৮ টি, আমতলী ১২ টি, বেতাগী ৩৫ টি ও তালতলী উপজেলায় ১৩ টি পূজামন্ডপে পুজা অনুষ্ঠিত হবে।দেবী দুর্গাকে স্বাগত জানাতে বরগুনা জেলায় প্রতিমা তৈরির শেষ সময় পার করছেন মৃৎ শিল্পীরা।

আগামী ২২ অক্টোবর ষষ্ঠী তিথিতে শুরু হবে দুর্গাপূজা। শেষ হবে ২৬ অক্টোবর দশমী তিথিতে প্রতীমা বির্সজনের মধ্যে দিয়ে।মহামারী করোনার কারণে এবার দুর্গাপূজার আনন্দ অনেকটা কম হতে চলছে।অন্যান্য বছরের মতো এবার পূজার সেই পুরনো সংস্কৃতির ধারবাহিকতা লুকিয়ে থাকবে ভক্তেদের অন্তরে অন্তরে। এবার বাইরে ঘুরতে যাওয়া, পূজামন্ডপগুলোতে আলোকসজ্জাসহ নানা ধরণের আয়োজন থাকছে না।

শারদীয় উৎসবের সব ক্ষেত্রেই থাকছে স্বাস্থ্যবিধির কড়াকড়ি।বরগুনা জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ বলেন,শান্তিপূর্ণ ভাবে দুর্গাপূজা পালনের জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল প্রকার ব্যাবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। কোভিড-১৯ মহামারি পরিস্থিতির বিষয়টি বিবেচনায় রেখে সরকারি সিদ্ধান্ত মেনে সবাই দুর্গোৎসব পালন করবেন। একই সাথে তিনি সনাতন ধর্মাবলম্বীদের শারদীয় দুর্গাপূজার শুভেচ্ছা জানিয়ে বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে এবার উৎসব সীমিত থাকলেও আগামীতে আবার ব্যাপক উৎসাহ উদ্বীপনার মধ্য দিয়ে দুর্গোৎসব উদযাপিত হবে।

পুলিশ সুপার মো. মারুফ হোসন পিপিএম বলেন, প্রতিটি পুজামন্ডপে শান্তি শৃংখলা রক্ষায় পুলিশসহ আনসার সদস্য মোতায়েন করা হবে। নজরদারী বাড়ানো হয়েছে। টহলে থাকবে আইন শৃংখলা বহিনী। কোন ধরণের বিশৃংখলা ঘটানোর চেষ্টা করা হলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।বরগুনা জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সুখ রঞ্জন শীল ভোরের পাতাকে বলেন, কোভিড-১৯ মহামারি পরিস্থিতির কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্বাত্বিক আচারের মাধ্যমে পূজার আয়োজন সীমাবদ্ধ রাখা হবে।

এ সম্পর্কিত ২৬টি নির্দেশনা মেনে আমাদের পূজা করতে হবে।তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকার তাদের সার্বিকভাবে সহযোগীতার পাশাপাশি আর্থিক ভাবেও সহযোগীতা করে আসছে। এবারেও সার্বিকভাবে সহযোগীতা করেছে। এবার করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি এবং সবার আরোগ্য কামনা করে মন্দিরে প্রার্থনা করা হবে

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক প্রত্যাশা প্রতিদিন এর দায়ভার নেবে না।