বগুড়ায় নিজ বাড়িতে গড়ে তুলেছে মাদকের অভয়ারণ্য

301

মো:আশিকুর রহমান সুজন, বগুড়া জেলা প্রতিনিধি :-  ব্যবসা রমরমা করতে নিজ বাড়িতেই বসাচ্ছে একের পর এক মাদক সেবীদের। যুবসমাজকে দলে দলে পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ড সুলতানগঞ্জ পাড়ার পুটু শেখের পলাতক ছেলের বড় ভাই তুহিন শেখ এমন কথায় জানান স্থানীয়রা।

 

বগুড়ার যুব সমাজের অতি পরিচিত প্রিয়জন, প্রয়োজন একাধিক মাদক মামলার আসামী দীপ্তি শেখ বর্তমানে পলাতক। এখন তারই বড় ভাই তুহিন শেখ অধিক মুনাফার মাদক ব্যবসা রমরমা করতে নিজ বাড়িতে মাদকের অভায়ারণ্য গড়ে তুলেছে।

 

দিনের পর দিন মোটরসাইকেলে আশা যুবকসহ বিভিন্ন বাহনে মাদকে আসক্ত যুব সমাজ এলাকায় সাধারণ মানুষের চলাচলে বিরম্বনার সৃষ্টি করছে, পাশাপাশি পাড়ার নারীদের পড়তে হচ্ছে বিভিন্ন সমস্যার মুখোমুখি এসব কথা বলেন, একজন নারী প্রতিবাদী ছদ্মনাম পাপড়ি।

 

এই বিষয়ে ১ নং ওয়ার্ড এর কাউন্সিলর সৈয়দ সার্জিল আহমেদ টিপু’র কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান যে, তিনি দায়িত্ব নেবার পরে সুলতানগঞ্জ পাড়া, ঘোনপাড়া সহ তার এলাকার ২/১ জায়গায় এসব মাদক কারবারির আনাগোনা প্রায় বন্ধ করে দিয়েছিলো। কিন্তু করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে পুলিশ প্রশাসন সহ তারা জনগণের স্বাস্থ্যসেবার দিকে বেশি মনোযোগী হওয়ায় এবং আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনের ব্যস্ততার কারণে এই সুযোগে কিছু পুরনো মাদক কারবারি গোপনে তাদের পুরনো মাদক ব্যবসা করা চেষ্টা করে যাচ্ছে বলে তিনিও শুনতে পাচ্ছেন।

তিনি অতি দ্রুতই এই বিষয়ে প্রশাসন কে সাথে নিয়ে মাদকের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর জিরো টলারেন্স নীতির বাস্তবায়নে মাঠে নামবেন।

বগুড়া কতোয়ালি সদর থানার উপশহর ফাড়ি অফিসার ইনচার্জ নূর উদ্দিন ”দৈনিক প্রত্যাশা প্রতিদিন” কে জানান, দীপ্তি শেখ একাধিক মাদক মামলার আসামি সে এখন পলাতক। তিনি আরো জানায় অনুসন্ধান করে তার বড় ভাই তুহিন শেখ এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব আইনগত ভাবে।
বিশ্লেষকরা মনে করেন, সরকার মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স থাকার পরও ক্ষমতাসীন কিছু লোভী মানুষের হস্তক্ষেপের’ কারণে বারবার নতুন মানুষ, নতুন ব্যবস্থাপনায় আসছে মাদক ব্যবসায়।
তারা আরো জানায় পৌরসভা নাগরিক সুবিধাসহ এবার তা নিশ্চিত করতে প্রশাসন দ্রুত ব্যবস্থা নিবে। পৌরসভা বাসির এখন এমনটিই প্রত্যাশা।
খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক প্রত্যাশা প্রতিদিন এর দায়ভার নেবে না।