আত্রাইয়ে বোরোধানে ব্লাস্ট রোগের আক্রমন

246

দিশেহারা কৃষক

আত্রাই (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ-  কৃষি প্রধান নওগাঁ আত্রাই সাহেবগঞ্জ-নবাবেরতাম্বু অধ্যাষিত আত্রাই উপজেলায় এবার রোরো ধানের বাম্পার ফলন কিন্তু কিছু জমিতে ধান কাটা শুরু হলেও আগামী সপ্তাহে পুরোদমে শুরু হবে ধান কাটা।

এ বছর ফলন ভালো হওয়ায়  খুশি কৃষকরা। যে সময় জমি থেকে ধান কেটে ঘরে তোলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন তার ঠিক সেই সময়েই দমন করাযাচ্ছেনা পোকার আক্রমন। এক জমি থেকে আরেক জমিতে খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে বলেস্থানীয় কৃষক এই পোকার নাম কারেন্ট পোকা বললেও উপজেলা কৃষি অপিস বলছেন ব্লাস্ট রোগ।

মূলত পাকা ধানেই এই পোকা প্রথমে ধান শীষের কচি ডগার রস চুষে খায়। ফলে ওই ধানের শীষ দুই/তিন দিনের মধ্যেই মরে সাদা হয়ে ওঠে। উপজেলার সাহেবগঞ্জ, খঞ্জর, জয়সাড়া, নবাবের তাম্বু, মালি পুকুর, পাঁচুপুর, গুড়নই ও পাঁচুপুর ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামের মাঠে সরেজমিনে গিয়ে কৃষকদের এমন দুঃখ-দূদশার চিত্র দেখা যায়।

এ সময় কথা হয় ক্ষতিগ্রস্ত কয়েকজন কৃষকের সাথে। সাহেবগঞ্জ সরদার পাড়া গ্রামের কৃষক সেনটু হোসেন বলেন, আমার ১০ বিঘা জমিতে ব্রি-81 জাতেরধান রোপন করেছি। সব জমিতেই ব্লাস্ট রোগ আক্রমন করেছে। কীটনাশক স্প্রে করেছি কোনপ্রতিকার পাওয়া যাচ্ছে না বলে তিনি জানান। আলহাজ্ব আবদার হোসেন সরদার বলেন, আমার তিন বিঘা জমিতে ব্রি-81 ধানের ব্লাস্ট রোগ ধরেছে বিভিন্ন প্রকার কীটনাশক প্রয়োগ করেও কোন প্রতিকার করা যাচ্ছে না।

এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ কেএম কাওছার হোসেন বলেন, বোরো মৌসুমে শুরু থেকে আবহাওয়া ভালোই ছিল। মাঝে কিছুটা প্রতিকুল আবহাওয়ার কারনে ধানে ব্লাস্ট রোগ দেখা দিয়েছে এবং প্রতিকারে আমরা যথাযথ ব্যবস্থা নিচ্ছি। সেই সাথে যেসব ধান ৮০ভাগ জমিতে পড়ে গেছে ওই ধানগুলো দ্রুত কেটে নেয়ার জন্য কৃষকদের পরামশ দেয়া হচ্ছে। এ ছাড়া যে সকলস্থানে জমিতে পোকার আক্রমন দেখা দিয়েছে সেখানে কীটনাশক স্প্রে করার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। আশা করা যায় তাতে কৃষকরা খুব বেশিক্ষতিগ্রস্ত হবেন না।

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক প্রত্যাশা প্রতিদিন এর দায়ভার নেবে না।