দায়িত্বের অবহেলার কারণে শেখ হাসিনার আমের বাগান ধংশের পথে

308

আজাদুল ইসলাম, পীরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধি :-  রংপুরের পীরগঞ্জ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আম বাগানের আমে অতিরিক্ত কীটনাশক প্রয়োগের ফলে গাছের পাতাসহ আম পচন ধরে মাটিতে পড়ে যাচ্ছে। এ বছরের কষ্টের ফসল আম মাটির সাথে মিশে গেছে। আমের বাগান কর্তৃপক্ষের দায়িত্বের অবহেলার কারণে এ বছরের ফসল প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার এই বাগানের আম মুখে দিয়ে দেখতে পারবেন না, বাগান এখন ধংশের পথে।

সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে দেখা যায়, উক্ত বাগানে অতিরিক্ত কীটনাশক প্রয়োগের ফলে আমের রং সাদা দাগ পড়ে বোটা শুখিয়ে মাটিতে পড়ে যাচ্ছে, এছাড়াও গাছের ডাল পালা শুকিয়ে পড়ে পাতা ঝরে পড়ছে মাটিতে। আগামীতে গাছ গুলি টিকিয়ে রাখাটাই বড়ো কঠিন হয়ে পড়েছে। কয়েক প্রকারে কোম্পানির কীটনাশকের বোতল ও পাউডারের প্যাকেট চখে পড়ে ওই বাগানে। গাছের ডাল পালা শুকিনয়ে যাওয়া দেখা একাধিক গাছের ডাল কেটে পালা করে রেখেছে। উপজেলার জাতীয় মহাসড়কের পাশে শেখ হাসিনার মোড় উজিরপুর মৌজায় ২ একর ১৫ শতাংশ জমির উপর বারি আম- ৪ সহ হাঁড়ি ভাঙা ও লিচু মাতৃবাগান গড়ে উঠেছে। গত সোমবার সকালে কর্তৃপক্ষ উক্ত বাগানে কীটনাশক প্রয়োগ করার পর থেকে বাগানের এ চিত্র দেখা যায়।

স্থানীয় লোকজন বলছে প্রধানমন্ত্রীর আমের বাগান সরকারি লোকজন দেখাশুনা করে তার পড়েও এ অবস্থা। সাধারণ মানুষের কি হবে। বাগান পাহারাদার শাহাদত হোসেন বলেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে বারবার সংবাদ দিলেও তারা কোন ব্যবস্থা নিচ্ছেন না।

এ বিষয়ে আঞ্চলিক কৃষি গবেষণা কেন্দ্র বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট, বুড়িরহাট রংপুর এর ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ড. আশিষ কুমার সাহা অন্যের কাঁধে দোষ চেপে বলেন আমি রংপুর আলম নগরের ইনচার্জ কে দায়িত্ব দিয়েছি সে এখন দেখাশুনা করছে। তবে এ ব্যপারে আমার কিছু করার নেই।

রংপুর আলম নগর সরেজমিন গবেষণা বিভাগের ইনচার্জ আলমগীর হোসেন তালুকদারে সাথে ফোনে যোগাযোগ চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেনি। বিগত বছরগুলোর চেয়ে এ বছর আমের বাম্পার ফলন হলেও ওই বাগানে থেকে সম্পূর্ণ ভাবে নোলকশান বোঝা গুনতে হবে বলে এলাকাবাসী আশংকা করছেন।

উল্লেখ উক্ত জমিটি ২০০০ইং সালে রংপুর জেলা আওয়ামীলীগের সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সম্পাদক শাহিদুল ইসলাম পিন্টু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে ওই জমিটি ক্রয় করেন বলে জানা যায়। স্থানীয়রা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের বিষয়টি তদন্তের দাবি কামনা করছেন।

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক প্রত্যাশা প্রতিদিন এর দায়ভার নেবে না।