বদলগাছীতে পুলিশের এক এস.আইসহ ৫জন আটক

280

ফিরোজ হোসেন, বদলগাছী (নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ নওগাঁর বদলগাছীতে শুক্রবার সন্ধ্যায় তক্ষক (টক্কর) নিয়ে প্রতারনা করতে গিয়ে পুলিশের হাতে আটক হয়েছেন পুলিশের এস.আইসহ এক নারী।

আটককৃতরা হলেন, পাবনা জেলার ফরিদপুর উপজেলার দেউভোগ গ্রামের আঃ সামাদের ছেলে গোলাম মোস্তফা (৪৬)। তিনি ঢাকা রিজার্ভ পুলিশের এসআই পদে কর্মরত। এস.আই গোলাম মোস্তফার ছেলে শাফিউল কবির রনি (২৩)। ছেলে রনির বন্ধু ময়মনসিংহ জেলার তারাকান্দি উপজেলার বালিখা গ্রামের মৃত ইব্রাহিম এর ছেলে সোহাগ (২১), জামালপুর জেলার সদর উপজেলার পাকুল্লা গ্রামের খোরশেদ আলমের ছেলে পারভেজ (৩৬) ও নওগাঁ জেলার বদলগাছী উপজেলার ভগবানপুর গ্রামের ওবাইদুল কবিরাজ এর স্ত্রী পিয়ারা বেগম (৪৫)।

নওগাঁর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু সালেহ মোঃ আশরাফুল আলম জানান, শুক্রবার সকালে ঢাকা রিজার্ভ পুলিশের এসআই গোলাম মোস্তফা ও তার ছেলে রনির বন্ধুদের নিয়ে বদলগাছী থানায় আসে। তারা বদলগাছী থানার ওসি চৌধুরী জোবায়ের আহাম্মদ এর কাছে ডিবি পরিচয় দিয়ে একটি অভিযান চালানোর নামে পুলিশের সহায়তা চাইলে ওসি চৌধুরী জোবায়ের আহাম্মদ এর সন্দেহ হলে জিজ্ঞাসার এক পর্যায়ে প্রতারনার বিষয়টি ধরা পরলে তাদের আটক করা হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে ডিবির পোষাক ও হ্যান্ডকাফ উদ্ধার করা হয়েছে। আটককৃতদের দেয়া তথ্য মতে উপজেলার ভগবানপুর গ্রামের আঃ আজিজ প্রাং এর ছেলে ওবাইদুল ইসলামের বদলগাছীস্থ ভাড়া বাড়ি থেকে তক্ষকটি উদ্ধার করা হয়।

বদলগাছী থানার ওসি চৌধুরী জোবায়ের আহাম্মদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, গোলাম মোস্তফা ইতোপূর্বে নওগাঁ গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) ও বদলগাছী থানায় দায়িত্ব পালনকালে স্থানীয়দের সাথে তার সখ্যতা গড়ে উঠে। সেই সূত্র ধরে ‘তক্ষক’ নামে একটি বিরল প্রজাতির প্রাণী বেচা-কেনার প্রতারনা করতে আসে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এস.আই গোলাম মোস্তাফা এমনটিই স্বীকার করেছে। তবে ‘তক্ষক প্রতারনা’ নাকি ডিবি পরিচয় দেয়ার পেছনে অন্য কোন উদ্দেশ্য লুকিয়ে আছে সেটি ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে। আটককৃতদের বিরূদ্ধে থানায় প্রতারনা এবং বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তিনি জানান, উদ্ধারকৃত তক্ষকটি বনবিভাগে হস্তান্তর করা হবে।

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক প্রত্যাশা প্রতিদিন এর দায়ভার নেবে না।