টিএমএসএস মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে কৃত্রিম হাত পা সংযোজন সেন্টারের উদ্বোধন

233

স্টাফ রিপোর্টার: টিএমএসএস মেডিকেল কলেজ ও রফাতুল্লাহ কমিউনিটি হাসপাতাল ঠেঙ্গামারা বগুড়ায় শনিবার কৃত্রিম হাত, পা সংযোজন সেন্টারের উদ্বোধন করা হয়েছে। ফিতা কেটে উদ্বোধন করেন বিশিষ্ট সমাজ সেবক শিরিন খান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পূর্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন রোটারী ক্লাব অব রমনা ঢাকার পাস্ট প্রেসিডেন্ট রোটারিয়ান আশেকুল ইসলাম, টিএমএসএস এর প্রতিষ্ঠাতা নির্বাহী পরিচালক অধ্যাপিকা ড. হোসনে আরা বেগম, উপ-নির্বাহী পরিচালক ডাঃ মোঃ মতিউর রহমান, স্বাস্থ্য সেক্টরের নির্বাহী উপদেষ্টা অধ্যাপক ডাঃ মওদুদ হোসেন আলমগীর পাভেল, টিএমএসএস এর উপদেষ্টা মোঃ ইজার উদ্দিন প্রমূখ।

উপস্থিত ছিলেন সমাজ সেবক ইয়াসমিন ইসলাম, সুমাইয়া ইসলাম, কৃত্রিম হাত, পা সংযোজন সেন্টারের কো-অডিনেটর, সহকারী অধ্যাপক ডাঃ মোঃ শাহারুল ইসলামসহ টিএমএসএস মেডিকেল কলেজ ও রফাতুল্লাহ কমিউনিটি হাসপাতালের বিভিন্ন বিভাগের ডাক্তার ও উর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ। অতিথিদের সামনে মাল্টিমিডিয়া প্রেজেন্টেশেনের মাধ্যমে কৃত্রিম হাত ,পা সংযোজন সেন্টারের বিস্তারিত তুলে ধরেন সেন্টার প্রধান মোঃ আতাউর রহমান শফিক। অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন উত্তরবঙ্গে এই প্রথম কৃত্রিম হাত,পা সংযোজন সেন্টার চালু হলো। যার মাধ্যমে দুর্ঘটনায় বা অন্য কোন কারণে হাত,পা হারানো মানুষ খুব অল্প খরচে এখান থেকে কৃত্রিম অঙ্গ সংযোজন করতে পারবে।

উত্তরবঙ্গে সড়ক দুর্ঘটনার হার বেশী। এ এলাকার মানুষ আর্থিক ভাবেও দূর্বল । তাদের পক্ষে ঢাকায় গিয়ে কৃত্রিম ভাবে অঙ্গ সংযোজন করা সম্ভব হয় না। তাই অনেকেই সারা জীবনের জন্য পঙ্গুত্ব বরণ করে। পরিবারের প্রধান উপার্জনক্ষম ব্যক্তি পঙ্গু হওয়ার কারনে পুরো পরিবারে অন্ধকার নেমে আসে। টিএমএসএস মেডিকেল কলেজ ও রফাতুল্লাহ কমিউনিটি হাসপাতালে এই সেন্টার চালু হওয়ায় এসব পরিবারের কষ্ট দুর হবে। এই অঞ্চলের মানুষ উপকৃত হবে। এটি একটি মানবিক ও মহৎ কাজ।

উল্লেখ্য রোটারী ক্লাব অব রমনা ও তাদের আন্তর্জাতিক পার্টনার রোটারী ক্লাব অব ইলসান জায়েরো রিপাবলিক কোরিয়ার আর্থিক সহযোগীতায় এই কৃত্রিম অঙ্গ সংযোজন সেন্টার চালু করা হলো। এই সেন্টারে প্রথম দিন সড়ক দূর্ঘটনায় পা হারানো বিজয় রাজ নান্টুর কৃত্রিম পা সংযোজন করা হয়।

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক প্রত্যাশা প্রতিদিন এর দায়ভার নেবে না।