গোবিন্দগঞ্জে আওয়ামী লীগ-বি এন পি‘র মধ্যে ভোট যুদ্ধ

246
গোবিন্দগঞ্জে আওয়ামী লীগ-বি এন পি‘র মধ্যে ভোট যুদ্ধ
গোবিন্দগঞ্জে আওয়ামী লীগ-বি এন পি‘র মধ্যে ভোট যুদ্ধ

গোবিন্দগঞ্জ (গাইবান্ধা) প্রতিনিধিঃ গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার ১৭ নং শালমার ইউনিয়নে আগামী ২৯ অক্টোম্বর চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ও বি এন পি‘র মধ্যে হবে ভোটের যুদ্ধ। গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার শালমারা ইউনিয়নে আগামী ২৯ অক্টোম্বর চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচন অনুষ্টিত হবে।

এরই মধ্যে নির্বাচনে আওয়ামীলীগ, বি এন পি এবং সতন্ত্র তিন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছে। প্রার্থী তিনজন হচ্ছেন আওয়ামী লীগ মোনোনীত প্রার্থী আওয়ামী লীগের গাইবান্ধা জেলার সাবেক তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক মরহুম প্রখ্যাত শ্রমিক নেতা মোহাম্মদ হোসেন ফকুর সহধর্মিনী বিচক্ষন নেত্রী শাহানা আক্তার, বি এন পি মোনোনীত প্রার্থী বিএ অনার্স, এম এ বাংলা, বিপিএড, এম পি এড, দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ও ফুটবল কাবাডি, হ্যান্ডবল, ভলিবল সি গ্রেডের রেফারি, তরুন নেতৃত্ব আবু তাহের শামীম মন্ডল এবং সাবেক চেয়ারম্যান আমির হোসেন শামীমের সহধর্মিনী নাদিরা আক্তার রুমা।

এরই মধ্যে প্রার্থীরা তাদের নিজ নিজ বিজয়ের আশা ব্যাক্ত করে অবিরাম গণ-সংযোগ করে চলেছেন। সোমবার দুপুরে ইউনিয়নের উলিপুর গ্রামের মরহুম লুৎফর হাজীর বাড়ীতে আওয়ামী লীগের প্রার্থী শাহানা আক্তার নির্বাচনী গণসংযোগ কালে বলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নৌকা প্রতীক নিয়ে বিগত নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। সেই লক্ষ্যে আগামী ২৯ তারিখে উপনির্বাচনেও অবাধ সুষ্ঠু এবং নিরপেক্ষ ভোটের মাধ্যমে বিপুল পরিমাণ ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন।

অপর দিকে জাতীয়তা বাদী দল বিএনপি মনোনীত প্রার্থী’ আবু তাহের শামীম মন্ডল দুপুর ১২ টায় শালমারা ইউনিয়নের শাখা হাতি বালুয়া বাজারের নির্বাচনী গণ-সংযোগ কালে তিনি বলেন এই ইউনিয়টি বি এন পি‘র ঘাটি। আগামী ২৯ শে অক্টোবর উপ-নির্বাচনে ব্যাপক ভোটের ব্যবধানে নির্বাচিত হওয়ার আশা ব্যাক্ত করেন। তিনি আরও বলেন, চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হতে পারলে শালমারা ইউনিয়ন কে মাদক, সন্ত্রাস, ধর্ষন, দালাল মুক্ত একটি মডেল ইউনিয়নে রুপান্তর করব। এ ছাড়াও স্বতন্ত্র প্রার্থীও গণ-সংযোগ করে যাচ্ছেন। উল্লেখ্য সাবেক চেয়ারম্যান আমীর হোসেন শামীম দূর্নীতির মামলায় ডন্ডপ্রাপ্ত হওয়ায় চেয়ারম্যান পদটি চলে যায়। সে কারনে চেয়ারম্যান পদটি শুন্য ঘোষনা হওয়ার পর এই উপ-নির্বাচন অনুষ্টিত হচ্ছে।

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক প্রত্যাশা প্রতিদিন এর দায়ভার নেবে না।