জয়পুরহাটে তরুনী কে ব্লাক মেল করে দেহব্যবসা করার অভিযোগে আটক-  ৩  

248
জয়পুরহাট তরুনী কে ব্লাক মেল করে দেহব্যবসা করার অভিযোগে ৩ জন আটক
এস এম মিলন জয়পুরহাট জেলা প্রতিনিধিঃ
জয়পুরহাট জেলার সদর থানাধীন প্রফেসর পাড়া এলাকায় গত ০৭ নভেম্বর রাত সারে ১১টায় র‌্যাব-সিপিসি-৩ জয়পুরহাট ক্যাম্পর অভিযানিক দল একটি বিশেষ অভিযান চালিয়ে লুকিয়ে ভিডিও তৈরির সরঞ্জাম, কালো মুখোশ, কনডম, যৌন উত্তেজক সিরাপ, পেনড্রাইভ, পাঁচটি মোবাইল ফোন, ৬টি সীম কার্ড মেমোরী কার্ড, ডায়েরী ও ব্লাকমেইলিং এর নগদ ১১ হাজার টাকাসহ ৩ জন প্রতারক ও ব্লাকমেইলার গ্রেফতার এবং ৪ জন ভিকটিম কে উদ্ধার করেছে।
জয়পুরহাট র‌্যাব ক্যাম্প সূত্রে জানা গেছে, ধৃত প্রতারক ও ব্লাকমেইলার সদর থানাধীন গুলশানমোড় এলাকার আব্দুল মজিদের ছেলে সুমন আহম্মদ (২৯) ও তার স্ত্রী মৌসুমী আক্তার (২০), তাঁতীপাড়া এলাকার মেহেদী হাসানের স্ত্রী মিনু আক্তার (১৯) “মর্ডান ড্যান্স গ্রুপ” নামে একটি নৃত্য গোষ্ঠীর আড়ালে দরিদ্র ও অসহায় যুবতীদের মানহানি এবং আর্থিক সুবিধার জন্য প্রলোভন ও ভয়-ভীতি দেখিয়ে জোরপূর্বক পতিতাবৃত্তিতে লিপ্ত করে আসছিল।
উক্ত ধৃত আসামীগণ নৃত্য গোষ্ঠীর আড়ালে জয়পুরহাট জেলাসহ আশে পাশের এলাকার কলেজ ছাত্রীদের মধ্যে শক্তিশালী নেটওয়ার্ক বজায় রাখে এবং যেসকল তরুণী কোনও ধরনের সামাজিক ও আর্থিক সমস্যায় পড়ে তখন তারা তাদের বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে জোরপূর্বক পতিতাবৃত্তিতে বাধ্য করে প্রতারক ও ব্লাকমেইলার চক্রটি তাদের লুকানো ক্যামেরা দিয়ে ভিডিও তৈরি করতে মেয়েদের ব্যবহার করে পরে এসব ভিডিওগুলো সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করার কথা বলে ভয় দেখিয়ে যুবক-যুবতীদের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়।
এ সময়ে পতিতাবৃত্তি ও ব্লাকমেইলিং করার জন্য জিম্মি করে রাখা একজন পুরুষ ও তিনজন তরুণীকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে।
পরবর্তীতে ধৃত আসামীদের বিরুদ্ধে জয়পুরহাট জেলার সদর থানায় মানব পাচার প্রতিরোধ ও দমন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং আদালতের মাধ্যমে তাদের কে জেল হাজতে প্রেরণ করা হবে।
খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক প্রত্যাশা প্রতিদিন এর দায়ভার নেবে না।