দর্শনার্থীদের জিম্মি করে চাঁদা আদায় কালে আটক-৩

274
জাতীয় উদ্যানে দর্শনার্থীদের জিম্মি করে চাঁদা আদায় কালে আটক-৩
জাতীয় উদ্যানে দর্শনার্থীদের জিম্মি করে চাঁদা আদায় কালে আটক-৩

ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর ধামইরহাটে আলতাদিঘী জাতীয় উদ্যানে দর্শনার্থীদের জিম্মি করে চাঁদা আদায়কালে ৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ। ৯ নভেম্বর বিকেলে আলতাদিঘীজাতীয় উদ্যোনে এই ঘটনা ঘটে।এজাহারের বরাত দিয়ে ধামইরহাট থানার ওসি আব্দুল মমিন জানান জানান,পত্নীতলা উপজেলার কৃষ্টবই ডাঙ্গাপাড়া গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে মো.শাকিব হোসেন তার ২ বান্ধবী মাহবুবা খাতুন ও কোহিনুর বেগমকে নিয়ে আলতাদিঘী ঘুরতে আসেন।

এ সময় জাতীয় উদ্যান এলাকা পরিদর্শণ ও প্রকৃতির অপরুপ দৃশ্য অবলোকন কালে স্থানীয় চাঁদাবাজ চক্রের অন্যতম সদস্য মইশড় (আলতাদিঘী মসজিদ পাড়া) গ্রামের জিল্লুর রহমানের ছেলে জিয়াউর রহমানজিয়া, ও লোকমান হোসেনের ছেলে আ. সোবহান দর্শনার্থী শাকিব ও তার ২বান্ধবীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ৩ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করে এবং শাকীবহোসেনকে মারপিট করে, এক পর্যায়ে বিকাশে টাকা নিতে জোত মাহমুদপুর গ্রামের বজলুর রহমানের ছেলে আশরাফ আলীকে ডেকে নিয়ে তার ফোনে ১ হাজার টাকা বিকাশ দিতে বাধ্য করে চাঁদাবাজ চক্র।

ভিকটিমরা ঘটনাটি কৌশলেপত্নীতলা থানা পুলিশকে অবগত করলে ধামইরহাট থানায় জানান পত্নীতলা থানারওসি সামসুল আলম শাহ। এ সময় তাৎক্ষনিক ভাবে ধামইরহাট থানা পুলিশঘটনাস্থলে গিয়ে ভুক্তভোগীদের উদ্ধার ও চাঁদাবাজ ৩ জনকে আটক করে। রাতে ভুক্তভোগী শাকিব হোসেনের বাবা নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে ধামইরহাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ১০ ডিসেম্বর দুুপুরে আসামীদের কোর্টে প্রেরণকরা হয়। পত্নীতলা সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. তরিকুল ইসলাম ঘটনাস্থলপরিদর্শণ করেন এবং আটককৃতদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ করেন। এ সময় তিনি আলতাদিঘী জাতীয় উদ্যানের দর্শনার্থীদের যাতে করে কেউ হয়রানী না করতে পারেসে লক্ষে পুলিশের টহল চালু থাকবে এবং হয়রানী চক্রের বিরুদ্ধে থানা পুলিশের অবস্থান আরও কঠোর থাকবে বলে তিনি এলাকাবাসীদের আশ্বস্ত করেন।

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক প্রত্যাশা প্রতিদিন এর দায়ভার নেবে না।