বগুড়ায় গাবতলীতে আনসার সদস্যদের সাহসীকতায় রক্ষা পেল সাবেকপাড়া রূপালী ব্যাংক

304

 

 

আশিকুর রহমান সুজন ,বগুড়া জেলা প্রতিনিধি :- বগুড়ার গাবতলী উপজেলায় ৫’ই জানুয়ারি ভোর পাঁচটায় রূপালী ব্যাংক সাবেকপাড়া শাখায় কতিপয় দুর্বৃত্তরা ব্যাংকের তালা ভেঙ্গে ডাকাতি করার চেষ্টা করলে আনসার সদস্যরা নিজেদের জীবন বাজি রেখে তা প্রতিহত করেন।

দূর্বৃত্তরা ব্যাংকের তালা ভেঙে ব্যাংকে প্রবেশ করার চেষ্টা করলে ব্যাংকে নিরাপত্তায় নিয়োজিত আনসার সদস্যদের সাথে একপর্যায়ে ডাকাতদলের ধস্তা-ধস্তি শুরু হয়। দুর্বৃত্তরা আনসার সদস্যদের উপর এসিড নিক্ষেপ করে ও চাকু দিয়ে গুরুতর জখম করে ছাদ দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে কর্মরত আনসার সদস্য গুরুতরভাবে আহত হন,তাঁরা বর্তমানে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি ও বার্ন ইউনিটের ওয়ার্ডে ভর্তি আছেন।

সরেজমিন ও অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, বগুড়া গাবতলীর সোনারায় ইউনিয়নের সাবেকপাড়া রূপালী ব্যাংক শাখায় গত সোমবার বিকেল পর্যন্ত লেনদেন শেষে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ব্যাংক ছেড়ে নিজবাসায় চলে যান। মঙ্গলবার সিসি ক্যামেরার ফুটেজ অনুযায়ী ভোর ৫.৩৪ মিনিটে দুইজন যুবক মুখোশ পরা অবস্থায় ব্যাংক সংলগ্ন অন্য একটি ছাদ বেয়ে ব্যাংকের ছাদের তালা কেটে ব্যাংকের দোতলায় প্রবেশ করে। এরপর দুইজন ডাকাত লোহা কাটার ড্রিল মেশিন দিয়ে লোহার কেচিগেটের তালা কেটে ব্যাংকের ভিতরে প্রবেশ করে। এ সময় ব্যাংকের ভিতরে টেবিলের উপর শুয়ে থাকা আনসার সদস্য মাসুদ রানা এগিয়ে গেলে ডাকাতেরা তার হাত রশি দিয়ে হাত পিছনে বেঁধে এলোপাতারিভাবে শরীরের তিনটি স্থানে ছুড়িকাঘাত করে এবং অপর একজন ডাকাত হাবিবুর রহমানকে এসিড নিক্ষেপ করে। এসময় ব্যাংকে টাকা রাখার ভল্ট এর দিকে ডাকাতেরা যাওয়ার চেষ্টা করলে আনসার সদস্যরা জীবন-মরণের ভয় না করে ডাকাদদের একজনকে যখম করলে আনসার সদস্যদের বাধার মুখে তারা ব্যাংকের ছাদের উপর দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে গুরুত্বভাবে আহত হয় রাজশাহী জেলার বাগমারা থানার নুরুপাড়ার হাবিবুর রহমান (৩২) ও নওগাঁ জেলার মান্দা থানার কচুয়া মধ্যপাড়া গ্রামের মাসুদ রানা (৩৪)৷

খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে ছুটে যান গাবতলী থানার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (গাবতলী সার্কেল) সাবিনা ইয়াসমীন, মডেল থানার ওসি মোঃ নুরুজ্জামান, তদন্ত ওসি আনোয়ার হোসেন পরিদর্শন করেন। পরে বগুড়া পুলিশ সুপার আলী আশরাফ ভূইয়া, জেলা আনসার ভিডিপির কমান্ড্যান্ট শেখ ফিরোজ আহম্মেদসহ অন্যান্য পুলিশ কর্মকর্তাগণ। এ প্রসঙ্গে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (গাবতলী সার্কেল) সাবিনা ইয়াসমীন জানান, চুরি কাজে ব্যবহৃত তালা ও লোহা কাটার যন্ত্রপাতি, প্লাস, ভাঙা দুটো তালাসহ একটি টুলবক্স উদ্ধার করা হয়েছে। তবে এটি কোন ডাকাতির চেষ্টার ঘটনা নয়, নিছক একটি চুরি করার ঘটনা।

এ ব্যাপারে বগুড়া জেলা আনসার কমান্ড্যান্ট শেখ ফিরোজ আহমেদ “দৈনিক প্রত্যাশা প্রতিদিন“কে জানান , প্রতিদিনের মতো ৪ জানুয়ারি ব্যাংকের কার্যক্রম শেষে রাতে আনসার সদস্য মাসুদ রানা ও হাবিবুর রহমান নিরাপত্তার জন্য ব্যাংকের ভেতরে অবস্থান করেন। দুর্বৃত্তরা ব্যাংকের কলাপসিবল গেটের তালা কেটে ভিতরে প্রবেশের চেষ্টা করলে নিরাপত্তায় নিয়োজিত আনসার সদস্যরা বাধা দেয়ার চেষ্টা করলে ডাকাতদলের সদস্যরা মাসুদ রানাকে ছুরিকাঘাত করে এবং হাবিবুর রহমানের উপর এসিড নিক্ষেপ করে। তিনি আরো বলেন আনসার সদস্যরা অসীম সাহসিকতার পরিচয় দিয়ে ব্যাংকে রক্ষিত সরকারি অর্থ ও সম্পদ রক্ষা করেছেন এবং ব্যাংকের কোন প্রকার ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। বর্তমানে মাসুদ রানা ও হাবিবুর রহমান শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সার্জারি ও বাহিরে ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছেন। তাদের চিকিৎসা চলছে এবং তারা আশঙ্কামুক্ত।

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক প্রত্যাশা প্রতিদিন এর দায়ভার নেবে না।