পুলিশ পরকিয়া করতে এসে ধরা খেল গাইবান্ধায়

317

তপন চন্দ্র দাস, গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি :- গাইবান্ধায় পরকিয়া করতে এসে এক পুলিশ কনস্টেবলকে হাতে-নাতে আটক করেছে এলাকাবাসী। পরে আটককৃত পুলিশ কনেস্টবল নিজেকে শেষ রক্ষাকরতে না পেরে অবশেষে প্রেমিকাকে বিবাহ করতে বাধ্য হয়েছেন।

ঘটনাটি ঘটেছে গাইবান্ধা শহরের প্রফেসার কলোনী এলাকায়। জানা গেছে, এই এলাকার মৃত আব্দুস সামাদ মিয়ার মেয়ে স্বামী পরিত্যক্ত কন্যা মোছাঃ সুষমিতার সাথে বগুড়া সদর উপজেলা কৈগাড়ী গ্রামের মৃত আঃহামিদের পুত্র সেলিম রেজা ওরফে আতিক ইসলাম দীর্ঘ ছয় মাস ধরে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে কথা-বার্তার এক পর্যায়ে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন।

বিগত কয়েক দিন ধরে আতিক ইসলাম সুষমিতার সাথে দেখা করার জন্য গাইবান্ধায় আসে এবং গোপনে সুষমিতার বাড়িতে অবস্থান করে। এক পর্যায়ে গতকাল (২০ জানুয়ারী) রাত ১০টার দিকে এলাকাবাসী পরকিয়ার বিষয়টি জানতে পেরে আতিক ইসলামকে হাতে-নাতে আটক করেন।

এ সময় আতিক জানান সে রাজশাহীতে মেট্রোপলিটন পুলিশে কর্মরত আছেন। পরে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে আপোষ দফা-রফার ভিত্তিতে সুষমিতাকে ৩ লক্ষাটাকা দেনমোহরানা ধার্য করে বিবাহ করেন।

খোঁজনিয়ে জানা গেছে , ইতিপূর্বে আতিক ইসলামের আরও দুটি বিবাহিত স্ত্রী আছে। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় বেশচাঞ্চল্যের সৃষ্টিহয়েছে।

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক প্রত্যাশা প্রতিদিন এর দায়ভার নেবে না।