নন্দীগ্রামে যৌতুকের দাবীতে নববধুকে পিটিয়ে হত্যা, স্বামী-শ্বাশুড়ি আটক

211
নন্দীগ্রামে যৌতুকের দাবীতে নববধুকে পিটিয়ে হত্যা, স্বামী-শ্বাশুড়ি আটক
নন্দীগ্রামে যৌতুকের দাবীতে নববধুকে পিটিয়ে হত্যা, স্বামী-শ্বাশুড়ি আটক

মনিরুজ্জামান মনির, নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি ঃ বগুড়ার নন্দীগ্রামে যৌতুকের দাবীতে স্বর্না (১৮) নামের এক নব বধুকে পিটিয়ে হত্যা করেছে শ্বশুর বাড়ির লোকজন। এঘটনায় পুলিশ নিহতের স্বামী ও শ্বাশুড়িকে আটক করেছে।রবিবার (১১ অক্টোবর) বেলা ১১ টার দিকে উপজেলার চাকলমা গ্রামে হত্যার ঘটনা ঘটে।

জানাগেছে, উপজেলার ভাটগ্রাম ইউনিয়নের কালিশ গ্রামের আনোয়ার হোসেনের মেয়ে স্বর্না একই উপজেলার চাকলমা গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে খায়রুল ইসলামের সাথে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে নয় মাস আগে বিয়ে হয়। বিয়ের কিছুদিন পর স্বর্না তার স্বামীর বাড়িতে ঘর সংসার শুরু করে। গত কয়েকদিন আগে থেকে স্বামীর বাড়ির লোকজন স্বর্নার পরিবারের নিকট থেকে চার লাখ টাকা যৌতুক দাবী করে। রবিবার সকালে স্বর্নার বাবা মেয়ের বাড়িতে গিয়ে যৌতুক বিষয়ে উভয় পক্ষ আলোচনার জন্য আগামী বুধবার দিন ধার্য্য করে বাড়ি ফিরে যান। পরে বেলা ১১ টার দিকে তাকে ফোন করে জানানো হয় স্বর্না গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

এখবর পেয়ে স্বর্নার বাবা তার মেয়ের বাড়ি গিয়ে মরদেহ দেখতে পারেন। তার মেয়ের শরীরে বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন দেখে বিষয়টি থানা পুলিশকে জানান তিনি। আনোয়ার হোসেন বলেন চার লাখ যৌতুকের দাবীতে তার মেয়েকে হত্যার পর আত্মহত্যা বলে প্রচার চালানো হয়েছে। নন্দীগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শওকত কবীর জানান, স্বর্নাকে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারনা করা হচ্ছে। এঘটনায় নিহতের স্বামী খায়রুল ও নাদিরা বেগমকে আটক করা হয়েছে।

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক প্রত্যাশা প্রতিদিন এর দায়ভার নেবে না।