উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় গাইবান্ধা পৌরসভার সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী মতলুবর রহমান

257

তপন চন্দ্র দাস, গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধিঃ  শ্রম, মেধা, আর মানবতা মানব চরিত্রের একটি মহৎ গুন। আর এই তিনটি গুনেই পারে একজন ব্যক্তিত্বকে জনপ্রিয়তা লাভ করাতে। এমনি একজন ব্যক্তিত্ব গাইবান্ধা পৌরসভার কাউন্সিলর মতলুবর রহমান। শুধু তাই নয়, কাউন্সিলর মতলুবর রহমান উন্নয়নমুলক কর্মকান্ডসহ সাধারণ জনগণের সেবায় এক উজ্জ্বল নক্ষত্রের নাম, এক অবিসংবাদিত পথিকৃৎ ।

বিশেষ করে সাধারণ জনগণের সেবক হিসেবে নিজ ওয়ার্ড তথা গাইবান্ধার প্রত্যন্ত অঞ্চলে মতলুবর রহমান নামটি আজ সর্বজনবিদিত। চেষ্টা, সাধনা আর অধ্যবসায়ের এক অভূতপূর্ব সমন্বয় এবং জন্মগত প্রতিভা, কর্মদক্ষতা আর মানসিক দৃঢ়তায় আলোকিত তার বিশাল কর্মযজ্ঞ। মতলুবর রহমান গাইবান্ধা পৌরসভার কলেজপাড়ায় এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। পিতা-মৃত আলহাজ্ব আহম্মদ উল্যাহ। ৮ ভাই ৪ বোনের মধ্যে তিনি পঞ্চম। সে গাইবান্ধা জেলায় ৬ বার শ্রেষ্ঠ করদাতা।

দীর্ঘ ১৫ বৎসর ধরে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন সক্রিয় কর্মী হিসেবে কাজ করে আসছেন। বলিষ্ঠ নেতৃত্বের কারনে দলের সকল নেতাকর্মীর ঐকান্তিক প্রচেষ্টা, শ্রদ্ধা আর ভালবাসায় বর্তমানে তিনি গাইবান্ধা পৌর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক (১) পদে অতি সফলভাবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। রাজনীতির পাশাপাশি তিনি একজন বিশিষ্ট ব্যবসায়ী। সব কিছুরমূলে মানব সেবাকে তিনি পেশা হিসেবে বেছে নেন। ৎ

এ পেশায় নিজের প্রতিভা দিয়ে জয় করেন এলাকার সাধারণ মানুষের হৃদয়। এরই ফলশ্রুতিতে গত পৌর নির্বাচনে সাধারণ জনগণের বিপুল ভোটে নিজের ৫নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদ লাভ করে অত্যান্ত সততা ও সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করে যথেষ্ট অবদান রেখে আসছেন।গতকাল তার কার্যালয়ে এক সাক্ষাতকারে কাউন্সিলর মতলুবর রহমান বলেন, স্যাটেলাইট যুগে প্রবেশ করেছে বাংলাদেশ। বিশ্বশান্তির অগ্রদূত মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শিতায় দেশ আজ উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হয়েছে।

দেশের এই সামগ্রিক উন্নয়নের সাথে যুগপৎভাবে এগিয়ে গাইবান্ধা পৌরসভাকে মডেল হিসেবে গড়তে চাই। পৌর কাউন্সিলরের দায়িত্ব গ্রহণের পর নিজ ওয়ার্ডের যে সকল উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রা অতি সফল ভাবে সাধিত হয়েছে এ প্রসঙ্গে তিনি জানান, নির্বাচনের পর থেকে সরকারি প্রকল্পের অর্থায়নে রাস্তা, পয়ঃনিস্কাশন ড্রেন নির্মাণ, সংস্কার ও পানির লাইন বর্ধিত করণের কাজ ছাড়াও সরকার প্রদত্ত বয়স্ক, বিধবা, প্রতিবন্ধী, গর্ভবর্তীসহ যত্ন প্রকল্পের কার্যক্রম সঠিক ভাবে বাস্তবায়ন করে সাধারণ জনগণের আশা-আকাঙ্খার প্রতিফলন ঘটিয়ে আসছেন।

এছাড়াও শালিসী বৈঠকের মাধ্যমে পারিবারিক কলহ বিবাদ নিষ্পত্তি ছাড়াও বাল্যবিবাহ, জঙ্গিবাদ ও মাদক প্রতিরোধসহ অনৈতিক কার্যকলাপবন্ধে একনিষ্ঠভাবে কাজ করে আসছেন।তিনি আরও বলেন, আমি এ পৌরসভার প্রত্যেক নাগরিককে মেয়রের ভূমিকায় দেখতে চাই। নাগরিক সচেতনতাই পরিবর্তনের শক্তি। নাগরিকগণ সচেতন হলেই এ পৌরসভাকে উন্নয়নের মডেল হিসেবে রূপান্ত করে পারবো বলে আমি দৃঢ় ভাবে বিশ্বাস করি।

এ প্রত্যাশা নিয়ে আসন্ন নির্বাচনে মেয়র পদে অংশ গ্রহণ করে উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় এগিয়ে যেতে চাই। এ জন্য সবার দোয়া ও ভালোবাসা চাই। পৌরবাসীর প্রত্যাশা এগিয়ে যাক উদ্যোম গতি নিয়ে মতলুবর রহমান। প্রতিফলিত হোক পৌরবাসীর উন্নয়নের স্বপ্ন।শুধু কীর্তির মহিমায় নয়, আন্তরিকতার দীপ্ততায়, চেতনার বহ্নিমানবতায়, সৃষ্টি উদ্যোমতায় এক অফুরন্ত অনুপ্রেরণার নাম মতলুবর রহমান । আমরাও চাই তার পুনঃ পুনঃ সফলতা।

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক প্রত্যাশা প্রতিদিন এর দায়ভার নেবে না।