কাহালুতে বামুজা ও থলপাড়া গ্রামবাসীর সংঘর্ষ

201

কুতুব শাহাব উদ্দিন, কাহালু (বগুড়া) প্রতিনিধিঃ-  মাইকে ঘোষনা দিয়ে বগুড়ার কাহালু উপজেলার বামুজা ও থলপাড়া গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় সোমবার রাতে থানায় মামলা দায়ের হয়েছে।

এই মামলায় থলপাড়া গ্রামের ১৯ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ৪০ জনকে আসামী করা হয়েছে। মামলাটি দায়ের করেন বামুজা গ্রামের মহিউদ্দিন মোহন।

জানা গেছে মামলাটি হওয়ার পরেও মঙ্গলবার সকালে বামুজার ৪ পাড়ার বিক্ষুব্দ লোকজন একত্রিত হয়ে থলপাড়ার লোকজনকে ধাওয়া করে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে মানুষকে সংঘাত থেকে রক্ষা করলেও সাধারণ মানুষের আতঙ্ক কাটেনি।

ওই দু-গ্রামবাসীর দফায় দফায় সংঘর্ষের পর থেকে “অন্তারপুকুর বাজার” একেবারে জনশূন্য হয়ে পড়ে। ব্যবসায়ীরা বন্ধ রাখেন দোকানপাট। পুলিশ বাজারের ব্যবসায়ীদের অভয় দিয়ে দোকান খুলবার আহবান জানানোর পরে মাত্র তিনটি দোকান বাদে সব দোকানই বন্ধ রাখা হয়েছে।

সেখানকার ব্যবসায়ী ইদ্রিস আলী জানান, কে কখন কার উপর হামলা করবে সেই আশঙ্কায় অনেকে দোকান খোলার সাহস পাচ্ছেনা। কড়ইগকুল, বামুজা ও থলপাড়া গ্রামের নাম না প্রকাশের শর্তে অনেকে জানান, সকালে বামুজার ৪ পাড়ার লোকজন একত্রিত হয়ে থলপাড়ার লোকজনকে ধাওয়া করার পর ওই গ্রামে পুরুষ মানুষ নেই বললেই চলে।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বদরুজ্জামান খান বদের জানান, বামুজা গ্রামের লোকজন বিক্ষুব্দ হয়ে অন্তারপুকুর বাজারে জড়ো হলে পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। কাহালু থানার অফিসার ইনচার্জ জিয়া লতিফুল ইসলাম জানান, সেখানে দুই গ্রামের লোকজন জড়ো হয়ে মুখোমুখি অবস্থান নিলে পুলিশ তাৎক্ষনিকভাবে সেখানকার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে।

তিনি আরো জানান, এ ঘটনায় এখনো কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি। সার্বিক পরিস্থিতি শান্ত রাখার জন্য আন্তরিকভাবে কাজ করা হচ্ছে।

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক প্রত্যাশা প্রতিদিন এর দায়ভার নেবে না।